বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
Homeপ্রধান সংবাদগ্রামীণ কয়েকশ’ অকেজো গুরুত্বপূর্ণ সেতু মেরামত ও পুননির্মাণের উদ্যোগ

গ্রামীণ কয়েকশ’ অকেজো গুরুত্বপূর্ণ সেতু মেরামত ও পুননির্মাণের উদ্যোগ

গ্রামীণ কয়েকশ’ অকেজো গুরুত্বপূর্ণ সেতু মেরামত ও পুনর্নিমাণের উদ্যোগ নিয়েছে। গ্রামীণ জনপদের ওসব সেতু ভেঙ্গে পড়েছে বা চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ওসব সেতু পুনরায় নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ওই লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগ ৪ হাজার ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ (২য় পর্যায়)’ শীর্ষক প্রকল্প নিয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের মাধ্যমে পরিবহন সময় ও ব্যয় হ্রাস এবং কৃষি বা অকৃষি পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা সহজীকরণ এবং প্রকল্প এলাকায় স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিসহ আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের লক্ষ্যে ‘পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ (২য় পর্যায়)’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে যোগান দেয়া অর্থে প্রণীত প্রকল্পটি সম্প্রতি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) অনুমোদন পেয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী ২০২৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি শতভাগ বাস্তবায়ন হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশাবাদী।
সূত্র জানায়, প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের ৮টি বিভাগের ৩৫টি জেলার ৫৮টি উপজেলায় অকেজো গুরুত্বপূর্ণ কয়েকশ’ সেতু মেরামত ও পুননির্মাণ করা হবে। তাতে প্রকল্প এলাকায় স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিসহ আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ও একইসঙ্গে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটবে। পণ্য পরিবহনে সময় ও ব্যয়ও কমবে। প্রকল্পের আওতায় দেশের ৫৮ উপজেলায় ১৭ হাজার ৬৯৭ মিটার সেতু নির্মাণ করা হবে। সেজন্য প্রকল্প এলাকায় ৪ হাজার ২৩০ মিটার সেতুর নদী শাসনের কাজ করা হবে। একই সঙ্গে ৩৮ হাজার ৮০০ মিটার সেতুর এপ্রোচ বা সংযোগ সড়কও নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পটি চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের (সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) আরএডিপিতে বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প তালিকায় রাখা হয়েছিল।
সূত্র আরো জানায়, সরকারের ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় গ্রামীণ সড়ক উন্নয়ন, সেতু নির্মাণ বা পুনর্বাসন, গ্রোথ সেন্টার বা বাজার উন্নয়ন ইত্যাদির ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। তার সঙ্গে প্রকল্পটি সঙ্গতিপূর্ণ। ওসব কারণে পরিকল্পনা কমিশন তাদের মতামতে বলেছে, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে গ্রামীণ সড়ক যোগযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, কৃষি ও অকৃষি পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা সহজীকরণ এবং স্বল্প বা দীর্ঘমেয়াদে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। ওই কারণেই স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর কর্তৃক সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে বাস্তবায়নের জন্য প্রস্তাবিত ‘পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ (২য় পর্যায়)’ শীর্ষক প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হলো।
এদিকে প্রকল্পটি সম্পর্কে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, এ প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অকেজো কয়েকশ’ সেতু নির্মাণের মধ্য দিয়ে গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি ঘটবে। ব্যবসার সম্প্রসারণও হবে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment - spot_img