সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০২৪
Homeপ্রধান সংবাদবিপুল বিনিয়োগেও ভাঙ্গাচোরা সড়ক-মহাসড়ক

বিপুল বিনিয়োগেও ভাঙ্গাচোরা সড়ক-মহাসড়ক

অর্থের অভাবে থমকে আছে দেশের সড়ক-মহাসড়কের উন্নয়ন। বর্তমানে সারাদেশে ২ হাজার ১৫২ কিলোমিটার জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়ক এবং জেলা সড়ক ভাঙাচোরা অবস্থায় রয়েছে। তা দেশের সড়ক-মহাসড়কের ১০ দশমিক ৪৯ শতাংশ। আগের বছর ভাঙাচোরা রাস্তা ছিল ২ হাজার ৭৭ কিলোমিটার। তবে সারাদেশে ১৫ হাজার ৪৬৪ কিলোমিটার অর্থাৎ ৭৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ সড়ক-মহাসড়কের অবস্থা ভালো। যদিও আগের বছরে ভালো ছিল ৭৬ দশমিক ২৫ শতাংশ রাস্তা। বর্তমানে ৩৭৭ কিলোমিটার সড়কের অবস্থা খুবই খারাপ, চলাচলের অযোগ্য। আগের বছরে এমন রাস্তাা ছিল ৪৫৭ কিলোমিটার। ভাঙাচোরা রাস্তা মেরামত ও ভালো সড়ক রক্ষণাবেক্ষণে আগামী পাঁচ বছরে ২১ হাজার ৫২৩ কোটি টাকা প্রয়োজন। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে লাগবে ৯ হাজার ৪৭৯ কোটি টাকা। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সারাদেশে সওজের ২২ হাজার ৪৭৬ কিলোমিটার জাতীয় মহাসড়ক, আঞ্চলিক মহাসড়ক ও জেলা সড়ক রয়েছে। এর মধ্যে ২০ হাজার ৫২৩ কিলোমিটারের জরিপ করা হয়েছে। জরিপে সড়ক মহাসড়ককে ভালো, মোটামুটি, নাজুক, খারাপ ও খুব খারাপ এই পাঁচ শ্রেণিতে ভাগ করা হয়েছে। যেসব রাস্তা খুব খারাপ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে, সেগুলো আসলে যান চলাচলের উপযোগী নয়। এ হিসাবে ৩৭৭ কিলোমিটার সড়ক যান চলাচলের অনুপযুক্ত। ২০২১ সালের জরিপে এমন সড়ক ছিল ৬৯১ কিলোমিটার। এর আগের বছরে ছিল ৯৪৩ কিলোমিটার। ২০১৯-২০ সালের জরিপে খুব খারাপ সড়ক ছিল প্রায় দেড় হাজার কিলোমিটার। গত চার বছরে চলাচল অনুপযোগী সড়ক প্রায় ৭৫ শতাংশ কমেছে। সূত্র জানায়, ৩ হাজার ৯৪৪ কিলোমিটার জাতীয় মহাসড়ক, ৪ হাজার ৮৯৭ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক এবং ১১ হাজার ৫৯৫ কিলোমিটার জেলা সড়ক জরিপ করা হয়েছে। বাকি সড়ক জরিপ করা হয়নি উন্নয়ন কাজ চলমান থাকায় এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাবে। চলতি বছরের হিসাব অনুযায়ী, দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অর্থাৎ জাতীয় মহাসড়কের ৩ হাজার ৯৯০ কিলোমিটারের মধ্যে ২ হাজার ৯৫১ কিলোমিটারের অবস্থা ভালো। তা জরিপ করা মহাসড়কের ৭৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ। আগের জরিপে ভালো মহাসড়কের দৈর্ঘ্য ছিল ২ হাজার ৯৫৭ কিলোমিটার বা ৭৫ দশমিক ৮৩ শতাংশের অবস্থা ভালো। অর্থাৎ ১ শতাংশ কমেছে ভালো জাতীয় মহাসড়ক। জাতীয় মহাসড়কের ৭০৬ কিলোমিটারের বা ১৭ দশমিক ৯ শতাংশের অবস্থা মোটামুটি। বাকি প্রায় ২৮৭ কিলোমিটার ভাঙাচোরা। আগের বছরে ভাঙাচোরা জাতীয় মহাসড়ক ছিল ২৭৪ কিলোমিটার। আগের বছরগুলোর মতো এবারের জরিপেও দেখা গেছে, সবচেয়ে খারাপ অবস্থা জেলা সড়কের। জরিপের আওতায় জেলা সড়কের মধ্যে ৮ হাজার ৭৫০ কিলোমিটারের অবস্থা ভালো। ১ হাজার ৬৩৩ কিলোমিটারের অবস্থা মোটামুটি। ১ হাজার ৫১২ কিলোমিটার ভাঙাচোরা। এর মধ্যে ২৬০ কিলোমিটার জেলা সড়ক গাড়ি চলাচলের অনুপযুক্ত। জরিপের আওতায় আসা আঞ্চলিক মহাসড়কের মধ্যে ৩ হাজার ৭৬২ কিলোমিটার বা ৮০ দশমিক ৩৪ শতাংশের অবস্থা ভালো। সারাদেশে ১০টি জোনে বিভক্ত সওজ। জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকার সড়কের অবস্থা সবচেয়ে ভালো। চট্টগ্রামের সড়ক-মহাসড়কের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। এই জোনে ৩৬১ কিলোমিটার সড়ক ভাঙাচোরা। এর মধ্যে ৪০ কিলোমিটার চলাচলের অনুপোযোগী। সূত্র আরো জানায়, গত ১৪ বছরে যোগাযোগ খাতে বিপুল বিনিয়োগ করা হয়েছে। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের বাজেটে সড়কের জন্য ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি বছরের সংশোধিত বাজেটে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকে ৩৫ হাজার ২৪৮ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। এর আগের বছরে প্রায় ৩৩ হাজার কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে সড়কের উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণে। কিন্তু এত বিপুল বিনিয়োগের পরও সড়কের ১০ শতাংশ ভাঙাচোরা রয়েছে। এদিকে সওজের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, সড়কের অবস্থার অবনতি হয়নি। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের ৪৫২ কিলোমিটার সড়ক সওজের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সেগুলো বেহাল হওয়ায় জরিপ প্রতিবেদনে ভালো সড়কের পরিমাণ কিছুটা কমেছে। সেগুলো রুটিন কাজের মাধ্যমে সচল রাখা হয়েছে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment - spot_img